পাটগ্রামে জীবন-মরণের সন্ধিক্ষণে জেগে থাকা শিশু বেলাল বাঁচতে চায়

পাটগ্রামে জীবন-মরণের সন্ধিক্ষণে জেগে থাকা শিশু বেলাল বাঁচতে চায়
পাটগ্রাম প্রতিনিধি.
বেলাল হোসেন (১১) ছিপছিপে গড়নের উজ্বল বরণের উচ্ছল এক শিশু ছিল। মা-বাবার প্রথম সন্তান হওয়ায় আদর-আবদার একটু বেশিই পেয়েছিল সে। কিন্তু শিশু বেলালের উচ্ছলতায় ছেদ পড়ে যখন সে চতুর্থ শ্রেণিতে উঠে। তখন থেকে শরীরে এক ধরনের ব্যথা অনুভব করতে শুরু করে বেলাল। একপর্যায়ে এই সুন্দর গড়নের শিশুটির শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে দলাদলা মাংসপিণ্ড দেখা দেয়। ধীরে ধীরে মার্বেল আকৃতির পরে ডিমের ন্যায় আকার ধারণ করে আপদ হয়ে বেড়ে ওঠা এই মাংসপিণ্ডগুলো। একসময় রংপুরে ডাক্তারের শরণাপন্ন হন বেলালের মা-বাবা। রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যাপক ডাক্তার মো.জাহিদুল ইসলাম শিশুটির এই রোগকে মালটিপল এক্সোস্টসিস তথা টিউমার বা আব রোগ নামে শনাক্ত করেন। তিনি বেলালের টিউমারগুলো দ্রুত অপারেশনের পরামর্শ দেন। অপারেশনে ৫০হাজার টাকা ব্যয় হবে বলেও জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু দিন গড়িয়ে মাস,মাস গড়িয়ে বছর হলেও অর্থের অভাবে অপারেশন করানো যায়নি বেলালের।
বেলালের মা বিউটি বেগম বললেন,আমরা গরীব মানুষ।অপারেশনের টাকা কোথায় পাই। টাকার অভাবে ছেলেটার চিকিৎসা দিতে পারছি না। বেলালের বাবা অহিদার রহমান বললেন, রোগের শুরুতে একজন হোমিও ডাক্তারের পরামর্শে ঔষধ খাওয়ানো শুরু করেছিলাম,কিন্তু ঔষধে উল্টো ফল হয়;তাই ঔষধ খাওয়ানো বন্ধ করে রংপুরের ডাক্তারের কাছে নিয়েছিলাম ছেলেকে। ডাক্তার অপারেশনের পরামর্শ দিয়েছিলেন,কিন্তু টাকার অভাবে অপারেশন করাতে পারিনি।
বেলাল এখন পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র। গত দেড় বছরে বেলালের সর্বাঙ্গে ডিমের আকারের ও মার্বেল আকারের অসংখ্য অযাচিত মাংসপিণ্ড শরীরের সমস্ত রস শুষে নিয়ে বেলালকে শারীরিকভাবে কাবু করেছে। তার শরীর বিকৃত হতে শুরু হয়েছে। অসুস্থ্য বেলালের আকুতি আমি সুস্থ্য হয়ে পড়াশুনা করতে চাই। নিয়মিত স্কুলে যেতে চাই।
নিজের শরীর এখন বেলালের কাছে আপদ। এই আপদ নিয়ে জীবন-মরণের সন্ধিক্ষণে এখন বেলাল। সে লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার বাউরা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের ডাঙ্গাটারী এলাকার বিউটি-অহিদার দম্পত্তির শিশু সন্তান। বেলালের পরিবার বেলালকে বাঁচানোর জন্য সমাজের কাছে আকুল আবেদন জানিয়েছেন। বেলালের বাবা অহিদার রহমানের মোবাইল নম্বর–০১৭৬৫৯১৮৫১১ । প্রয়োজনে গোল্ডেলএইজ.কম অফিসেও যোগাযোগ করা যেতে পারে।

Share.

Comments are closed.