দিনাজপুরে সদ্য ভুমিষ্ট এক নবজাতকের গল্প…

আসাদুর রহমান (দিনাজপুর প্রতিনিধি)  :

দিনাজপুর সদরের পাটুয়াপাড়ায় গভীর রাতে হঠাৎ ঝোপের মধ্যে শিশুর থেমে থেমে কান্নার আওয়াজ। কাছে গিয়ে দেখতে পাওয়া যায় সদ্য ভুমিষ্ট এক শিশু কোন কাপড় ছাড়াই আবর্জনা দিয়ে অর্ধশরীর ঢাকা দেয়া রয়েছে। এ সময় এগিয়ে আসে পাড়ার এক তরুন। ভর্তি করে হাসপাতালে, জানায় পুলিশকেও। যে শিশুকে অবহেলা করে কোন মাতা ফেলে দিয়েছে সেই শিশুকেই রতœ মনে করে ইতিমধ্যেই ২৫ জন আবেদন করেছে দত্তক নেয়ার জন্য।

দিনাজপুরে সদরের পাটুয়াপাড়া মাটির গর্ত ফেলে  দেয়া এক নবজাতককে উদ্ধার করে পৃথিবীর আলো দেখালেন  এলাকাবাসীসহ পুলিশ সদস্যরা। চিকিৎসক ও নার্সদের নিবীর পরিচর্যায় ওই নবজাতক এখন সুস্থ। শিশুটির দায়িত্ব নিতে নিঃসন্তান অনেক নারী পুলিশের কাছে আবেদন করেছেন।

উদ্ধারকারী তরুণ আহনাফ হাবিব জানায় , গত রোববার দিবাগত রাতে দিনাজপুর শহরের পাটুয়াপাড়া এলাকায় পুকুরের পার্শ্বে একটি ঝোপের মধ্যে শিশুর থেমে থেমে কান্নার আওয়াজ পায় এলাকাবাসী। দেখা যায় শিশুটির গায়ে কাপড় নেই, আবর্জনা দিয়ে অর্ধশরীর পোতা। প্রচন্ড শিতে কাঁপছে শিশুটি। এ সময় পাড়ার তরুণ আহনাফ হাবিব এগিয়ে আসে। পরম যতেœ নিজের পোশাক খুলে শিশুটির গায়ে জড়িয়ে কোলে নিয়ে ছুটে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। বিষয়টি ফোনে জানায় পুলিশকেও।

দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শিশু বিভাগ নার্স ইনচার্জ বিলকিস আরা, জানায়  বর্তমানে শিশুটি চিকিৎসাধীন রয়েছে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। তার অবস্থা ভাল বলে জানিয়েছে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ও নার্সরা।

দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ইনডোর মেডিকেল অফিসার হালিমা সরকার জানায় ইতিমধ্যেই ওই শিশুকে দত্তক নেয়ার জন্য অনেকেই আবেদন করেছে।

Share.

Comments are closed.