ডিমলায় ওয়াক্তিয়া নামাজ ঘরে আগুন,৬জন আটক

জেলা প্রতিনিধি নীলফামারী:
নীলফামারীর ডিমলায় জমি দিয়ে বিরোধের জের ধরে ওয়াক্তিয়া মজিদে আগুন দেয়ার ঘটনায় ৬ জন আটক করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের শোভানগঞ্জ বালাপাড়া গ্রামের ঘটনাটি ঘটে।

শোভানগঞ্জ বালাপাড়া গ্রামের আফছার আলীর পুত্র জবাইদুল ইসলামে সাথে শোভানগঞ্জ পশ্চিমপাড়া ওয়াক্তিয়া মসজিদ কমিটির দীঘদিন দ্বন্দ চলে আসছিল।

মঙ্গলবার উক্ত মসজিদের জমি দিয়ে দ্বন্দ বাধলে জবায়দুল ইসলামের লোকজন ওয়াক্তিয়া মসজিদটিতে আগুন দিয়ে পুড়ে দেয়। এ সময় এলাকাবাসী জবায়দুল ইসলামের ছোটভাই জাহিরুলের শ্বশুড় খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের দোহলপাড়া গ্রামের মৃত এজাহার উদ্দিনের পুত্র মোবারক হোসেন (৪৫)সহ ৬জনকে আটক করে। আটককৃতরা হলেন খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের দোহলপাড়া গ্রামের মৃত দবির উদ্দিনের পুত্র বেলাল উদ্দিন (২৫) ও আল আমিন (২২), আব্দুল মোতালেবের পুত্র মোকলেছার রহমান (৪০), আব্দুল সাত্তারের পুত্র রাব্বানী (২২) ও একই ইউনয়নের বন্দর খড়িবাড়ী গ্রামের রফিকুল ইসলামের পুত্র এরশাদ হোসেন (২২)।
বালাপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান জহুরুল ইসলাম বলেন, জমি নিয়ে বিরোধের জের ওয়াক্তিয়া মসজিদে আগুন দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকাবাসী ৬জনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে। শোভানগঞ্জ পশ্চিমপাড়া ওয়াক্তিয়া মসজিদ কমিটির সভাপতি মিজানুর রহমান বলেন, স্থানীয়দের উদ্দ্যেগে ওয়াক্তিয়া মসজিদ ঘরটি নির্মান করা হলেও জবায়দুল ইসলামে ২হাত জায়গা মসজিদে ঢুকে।

পরবর্তীতে ডিমলা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান তবিবুল ইসলাম পাশ্ববর্তী ১ শতাংশ জমি দেয়। কিন্তু জবায়দুল ইসলাম তার জমিটি দখল করতে গেলে সংঘর্ষ বাধলে তার পরিবারের লোকজন মসজিদ ঘরটিতে আগুন দিয়ে পুড়ে দেয়।
ডিমলা থানার ওসি (তদন্ত) মফিজ উদ্দিন শেখ বলেন, বালাপাড়া ইউনিয়নে ওয়াক্তিয়া মসজিদ পুড়ে দেয়ার ঘটনায় এলাকাবাসী ৬জনকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে।

Share.

Comments are closed.