কুড়িগ্রামে শিক্ষকের আঙ্গুল কাটলেন, মাথা ফাটালেন শিক্ষক

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি.

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে এক শিক্ষক তার সহকর্মীকে দা দিয়ে এলোপাতারী কুপিয়ে মাথার মগজ বের করাসহ হাতের আঙ্গুল কেটে ফেলে দিয়েছে। মুমূর্ষ ওই শিক্ষক রাসেল মিয়াকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার পাইকেরছড়া ইউনিয়নের পাইকেরছড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রাসেল মিয়ার সাথে শিক্ষক বাবলার পেশাগত দন্দ চলে আসছিল। শনিবার দুপুরে রাসেল মিয়া ওই প্রতিষ্ঠানের অফিস কক্ষে অফিসিয়াল কাজকর্ম করছিলেন। হঠাৎ করে বাবলা দা হাতে উত্তেজিত হয়ে এসে রাসেল মিয়াকে এলোপাতারী কোপাতে থাকে। এক পর্যায়ে তার হাতের আঙ্গুল কেটে মাঠিতে পড়ে যায় ও মাথা ক্ষত-বিক্ষত হয়।
এসময় তার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে রাসেলকে উদ্ধার করে এবং বাবলাকে আটক করে বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে আটকে রেখে পুলিয়ে খবর দেয়।
আহত রাসেলকে ভুরুঙ্গামারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ নিয়ে আসলে তার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎক তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বাবলাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।আহত রাসেল পাইকেরছড়া ইউনিয়নের কাদের সরকারের পুত্র ও আটককৃত শিক্ষক বাবলার বাড়ি নাগেশ্বরী উপজেলার নাখারগঞ্জ ইউনিয়নে। সে তার ভগ্নীপতির বাড়িতে থেকে স্কুল করত। কিš বাবলা মাদকাসক্ত হওয়ায় তার স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে যায়।
এ ব্যাপারে ভুরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির বলেন, মামলার প্রস্ততি চলছে।

Share.

Comments are closed.