এরশাদের সমাধি নিয়ে জিএম কাদের ও নেতা-কর্মীদের মধ্যে বিভেদ

এরশাদের সমাধি নিয়ে জিএম কাদের ও নেতা-কর্মীদের মধ্যে বিভেদ

goldenage.com

সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কবর কোথায় হবে, তা নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতায় এরশাদের পরিবার, আত্মীয় স্বজন ও দলের নেতাকর্মীরা।

পরিবার ও নেতাকর্মীদের মাঝে এ নিয়ে মতানৈক্য দেখা দিয়েছে। চলছে তর্ক বিতর্কও। স্ত্রী রওশন, ছোটভাই জিএম কাদেরসহ দলের বৃহৎ অংশ ঢাকায় চাইলেও রংপুরের নেতাকর্মীরা চান রংপুরে এরশাদকে সমাহিত করতে। সম্প্রতি দলের প্রেসিডিয়াম সভায়ও এরশাদের কবর নিয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেনি দলের শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা।

জানা গেছে, বনানীতে সেনা কবরস্থানে সমাহিত করা হতে পারে এরশাদকে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিরক্তি প্রকাশ করে এরশাদের ছোটভাই জিএম কাদের বলেন, হাতে বেশ কয়েকটা চয়েজ আছে। দেখা যাক কি হয়। কোথায় দেয়া যায়। তবে রাজনৈতিক দলের চেয়ারম্যান, সাবেক রাষ্ট্রপতি ও সাবেক সেনা প্রধান হিসেবে বিবেচনা করে তিনি সেনা কবরস্থানে দেয়ার বিষয়ে মত দেন।

তিনি বলেন, বড় ভাই ঢাকায় সেনা কবরস্থানে সমাহিত করার কথা বলেছিলেন।
তবে রংপুরে এরশাদের কবর দেয়া নিয়ে রংপুরের নেতাকর্মীরা একাট্টা। তাদের সঙ্গে এরশাদের আত্মীয় স্বজনও আছেন। তারা কোনভাবেই এরশাদকে ঢাকায় কবর দিতে নারাজ। তারা যে কোন মূল্যে এরশাদের কবর রংপুরের পল্লীনিবাসে নিয়ে যেতে চান।

এরিকের মা বিদিশা এরশাদ মনে করেন, এরশাদের অছিয়ত মেনে তাকে রংপুরে নিজের পল্লীনিবাসে সমাহিত করা উচিত। সেখানে দিলে এরিকও শান্তি পাবে। রংপুরের নেতাকর্মীরাও খুশি হবে। অন্তত তার কবর নিয়ে বিতর্ক তোলা কিংবা রাজনীতি করা আমাদের উচিত হবে না।

উল্লেখ্য,সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ১০ দিন লাইফ সাপোর্টে থাকার পর জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেছেন। রোববার সকাল পৌনে ৮টার দিকে তাকে মৃত ঘোষনা করেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

Share.

Comments are closed.